নায়করাজ রাজ্জাক ইন্তেকাল করেছেন

বাংলা চলচ্চিত্রের প্রবাদপুরুষ নায়করাজ রাজ্জাক ইন্তেকাল করেছেন। ২১ আগস্ট সন্ধ্যা ৬টার পরপর রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।
বিষয়টি প্রিয়.কমকে নিশ্চিত করেছেন চিত্রপরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর। বর্তমানে তার মৃতদেহ এখন রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে রয়েছে।
নায়ক রাজ্জাকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শোক প্রকাশ করেছেন।
তার মৃত্যুতে সংস্কৃতি অঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।
চলচ্চিত্র জগতের অভিভাবকের মৃত্যুতে আগামী তিন দিন কর্মবিরতি পালন করবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সমিতি।
রাজ্জাক ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার টালিগঞ্জে ১৯৪২ সালের ২৩ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। কলকাতার খানপুর হাইস্কুলে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ার সময় স্বরসতী পূজা চলাকালীন মঞ্চ নাটকে অভিনয়ের জন্য তার শিক্ষক রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী তাকে বেছে নেন নায়ক অর্থাৎ কেন্দ্রীয় চরিত্রে। শিশু-কিশোরদের নিয়ে লেখা নাটক বিদ্রোহীতে গ্রামীণ কিশোর চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়েই নায়ক রাজের অভিনয়ে সম্পৃক্ততা।
প্রায় ৫০ বছর ধরে চলচ্চিত্র শিল্পে কাজ করছেন রাজ্জাক। তিনি ১৯৬৪ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের ঢাকায় পাড়ি জমান। প্রথম দিকে রাজ্জাক তৎকালীন পাকিস্তান টেলিভিশনে ‘ঘরোয়া’ নামের ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করে দর্শকদের কাছে জনপ্রিয় হন। নানা প্রতিকূলতা পেরিয়ে তিনি আব্দুল জব্বার খানের সাথে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করার সুযোগ পান। সালাউদ্দিন প্রোডাকশনের তেরো নাম্বার ফেকু ওস্তাগড় লেন চলচ্চিত্রে ছোট একটি চরিত্রে অভিনয় করে সবার কাছে নিজ মেধার পরিচয় দেন রাজ্জাক।
১৯৬৭ সালে মুক্তি পায় নায়ক হিসেবে তার প্রথম চলচ্চিত্র ‘বেহুলা’। সেই থেকে শুরু।
অভিনয়শিল্পী হিসেবে রাজ্জাকের ঝুলিতে রয়েছে ৩০০টির মতো চলচ্চিত্র। আর এর মধ্যে বেশ কয়েকটিই পেয়েছে ক্লাসিক সিনেমার খ্যাতি!



এই প্রতিবেদন টি 371 বার পঠিত.