সিলেটে ও সুনামগঞ্জে সুরমা-কুশিয়ারার পানি কমছে

সিলেটে ও সুনামগঞ্জে সুরমা-কুশিয়ারার পানি কমছে । কিন্তু দুর্ভোগ কমছে না মানুষের । এখনও প্রধান দুই নদীর সবকটি পয়েন্টে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। নদীর পানি কমতে থাকায় অপেক্ষাকৃত উঁচু এলাকা থেকে পানি নামতে শুরু করেছে।
১৭ আগস্ট বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত সুরমা নদীর সিলেট, কানাইঘাট পয়েন্টে এবং কুশিয়ারা নদীর অমলসীদ ও শেওলা পয়েন্টে বিপদসীমার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। তবে ১৬ আগস্টের তুলনায় ১৭ আগস্ট পানি প্রবাহ কিছুটা কমেছে বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্র জানিয়েছে।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে পাওয়া তথ্যমতে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কানাইঘাটে সুরমা নদী বিপদসীমার ৮০ সেন্টিমিটার, সিলেটে সুরমা বিপদসীমার ২৬ সেন্টিমিটার, শেওলায় কুশিয়ারা বিপদসীমার ৬০ সেন্টিমিটার, অমলসীদে কুশিয়ারা বিপদসীমার ৬৩ সেন্টিমিটার এবং শেরপুরে কুশিয়ারা বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
পাউবো সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বরাক উপত্যাকায় বৃষ্টিপাত না হওয়ায় আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির বড় ধরনের অবনতির আশঙ্কা নেই।
সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার বলেন, টানা বর্ষণে সিলেটের ৬টি উপজেলা বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। বন্যা মোকাবিলায় পর্যাপ্ত প্রস্তুতি রয়েছে। এখনও কোনো এলাকায় বিপর্যয় দেখা দেয়নি।
আর সিভিল সার্জন অফিসের তথ্যমতে, সিলেটে এখনও তেমনভাবে বন্যা হয়নি। কিছু নিচু এলাকায় পানি প্রবেশ করলেও তা বেরিয়ে যাচ্ছে।
সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. হিমাংশু লাল ধর বলেন, আমাদের কাছে খবর ছিল আগস্টের মধ্যভাগে বন্যার আশঙ্কার কথা। আমরা সে লক্ষ্যে পুরোপুরি প্রস্তুতি রেখেছি। যথেষ্ট ওষুধপত্র মজুদ রয়েছে।



এই প্রতিবেদন টি 339 বার পঠিত.