এবার মুখ খুললেন সালমান শাহ এর স্ত্রী সামিরা

 

এবার মুখ খুললেন সালমান শাহ এর স্ত্রী সামিরা । ঢাকাই চলচ্চিত্রের এক কিংবদন্তীর নাম সালমান শাহ। কোটি ভক্তদের কাঁদিয়ে তিনি পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন ২১ বছর আগে। কিন্তু আজও তিনি বেঁচে আছেন মানুষের হৃদয়ে। তার মৃত্যু আসলে ঠিক কীভাবে হয়েছে তা আজও গোপনেই রয়ে গিয়েছে। তবে সালমান শাহ হত্যা না আত্মহত্যা করেছেন। এই প্রশ্নটি বা রহস্যটি এখন আবার পুনরায় প্রাণ ফিরে পেয়েছে। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার সাত নম্বর আসামি রুবি সম্প্রতি এক ভিডিও বার্তায় দাবি করেন, সালমান হত্যার সঙ্গে তার স্ত্রী সামিরা সরাসরি জড়িত। এই ভিডিওটিই সারা বিশ্বের বাঙালিদের কাছে পৌঁছে যায় মুহূর্তেই। তারপর থেকেই সালমান শাহ হত্যার ফাঁসির দাবিতে আরেকবার সোচ্চার হন সালমান ভক্তরা। এরপরই সামিরার অন্তরঙ্গ একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। অনেকে দাবি করেন, এটি খল অভিনেতা ডনের সঙ্গে সামিরার ছবি। এ নিয়ে সামিরা বা ডনের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যাচ্ছিল না। তবে কথিত সংবাদ মাধ্যমে সামিরার উক্তি দিয়ে প্রকাশ করা হয় যে ডনের সঙ্গে যে ছবিটিকে বলা হচ্ছে সামিরার। সেটি আসলে সামিরার নয়। আর এটা সামিরা নিজ মুখে স্বীকার করেন। কিন্তু এ বিষয়ে সঠিক কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এই যখন সালমান শাহ নিয়ে মানুষের অবস্থা। অভিযোগের তীর যখন সব সামিরার দিকে। ঠিক তখনই তার কোন হদিস পাওয়া যাচ্ছিল না। তার কথিত নম্বরে কল করেও যখন তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না ঠিক তখন একটি নিউজ পোর্টালে প্রকাশ হয় সামিরা সঙ্গে কথপকোথন। সেখানে সামিরা সালমান শাহ ইস্যু নিয়ে মুখ খুলেন। সেই কথপোকথনের কিছু কথা তুলে ধরা হলো ।

রুবির ভিডিওটি প্রকাশ হবার পরও কেন আপনি কোন কথা বলেননি? এমন প্রশ্নের জবাবে সামিরা বলেন, ‘কই আমি তো চুপ থাকিনি। হ্যাঁ এটা বলতে পারেন আমি মিডিয়ার সামনে আসিনি। তারও অনেক কারণ আছে। কিন্তু যেখানে বলার ঠিক সেখানেই কথা বলেছি। সেই ৯৬ সাল থেকেই গোয়েন্দা, পুলিশ, র‌্যাব সবাইকেই আমি বলে আসতেছি। আর কত একই বিষয়ে কথা বলব। কারণ একটাই আমি সব সময় চেয়েছি সালমান শাহর মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্ত হোক।’

রুবি ভিডিওতে বলেছেন সালমান শাহ আত্মহত্যা করেনি বরং তাকে হত্যা করা হয়েছে। আর অভিযোগের তীর আপনার দিকে কেন? ‘এটা আমি ঠিক জানি না সবাই কেন আমাকে দোষারোপ করছে। আমি ইমনকে (সালমান শাহ) ভালোবাসতাম। আমি জানি সে আত্মহত্যা করেছে। সেদিন ইমন অনেক মানসিক প্রেসারে ছিল। তবে আমি ভাবতেও পারিনি সে আত্মহত্যা করবে। এখন এতো বছর পরে এসে রুবি কেন এই কথা বলেছে এটা তাকেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হোক। আর ইমনকে খুন করা হয়েছে আসলে রুবির এই কথার কোন ভিত্তি নেই।’

আপনি কেন এতোদিন মিডিয়ার সামনে আসেননি? ‘ইমন আমাকে প্রথম মিডিয়ার সামনে নিয়ে আসছিল কিন্তু যখন সে নাই তো আমি আর মিডিয়াতে আসতে চাইনি। আমার মানসিক ভাবে অনেক সমস্যাই হয়েছে। অনেকবার ভেবেছিলাম দেশের বাইরে চলে যাব পড়াশুনা করতে। একপর্যায়ে ইমনের বন্ধুই আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। আমি ফিরিয়ে দেই কিন্তু আমাদের দুই পরিবারের সম্মতিতেই বিয়েটা হয়।’
ডনের সঙ্গে মেয়েটি আসলে কে? ‘ওই ছবিতে কি আমাকে তো স্পস্ট বোঝা যায়নি। না বুঝেই আমাকে ব্লেম দেওয়া হয়েছে। আর এটা পুরা মিথ্যা।’
আপনার সংসারের কী খবর? ‘সংসার আছে চলছে। তিন ছেলে মেয়ে আমার। ছেলে থাকে মালয়েশিয়া আর মেয়ে দুটি ঢাকাতেই একটি স্কুলে পড়াশোনা করে। কিন্তু এখন আবার যেভাবে সবাই আমাকে দোষারোপ করছে এতে যদি আমার পরিবার, স্বামী, সন্তানদের কোন ক্ষতি হয় তাহলে তার দায়ভার নিতে হবে নীলা চৌধুরীকে। আর হ্যাঁ, সালমান শাহ এর যে অগণিত ভক্ত আমাকে নানা খারাপ ভাষায় কথা বলছে আর আমার বোন ও তাদের সন্তানদের ছবি প্রকাশ করা হচ্ছে এতে যদি তাদের কোন ক্ষতি হয় তাহলে এর দায়ভারও নিতে হবে নীলা চৌধুরীকে।’



এই প্রতিবেদন টি 1470 বার পঠিত.