জাতীয় শোক দিবসে আলীশান আয়োজন

জাতীয় শোক দিবসে আলীশান আয়োজন । সারিবদ্ধভাবে বেঁধে রাখা হয়েছে অনেকগুলো গরুকে। অনেকেই মনে করতে পারেন এটা কোনো গরুর হাট। আসলে তা কিন্তু নয়, গরুগুলো কেনা হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে বিশেষ ভোজের জন্য।

এবারও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে ১২০টি গরু জবাই দিয়ে বিশেষ ভোজের আয়োজন করেছেন নোয়াখালী-৪ সদর-সুবর্ণচর আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী।

তিনি মঙ্গলবার ১৫ আগস্টে ১২০টি গরু জবাই করে জেলার সব ইউনিয়ন ও পৌর এলাকায় বিশেষ ভোজের ব্যবস্থা করেছেন। ব্যক্তিগত তহবিল থেকে তিনি এ ভোজের ব্যয় নির্বাহ করবেন।

নোয়াখালী তথা গোটা দেশের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকীতে এক সঙ্গে এত সংখ্যক গরু দিয়ে বিশেষ ভোজের আয়োজন করায় তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের মাাঝে আলোচনায় রয়েছেন।

ইতোপূর্বেও তিনি বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকীতে জেলা শহরে দেড় শতাধিক গরু জবাই করে বিশেষ ভোজ দিয়ে সারা দেশে আলোড়ন তোলেন। প্রতি বছরই শোক দিবসে তিনি নিজের তহবিল থেকে বিশেষ ভোজের ব্যবস্থা করে আসছেন।

এ বিষয়ে একরামুল করিম চৌধুরী জানান, জাতির জনকের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা রেখেই তার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে তিনি এবারও ১২০টি গরু দিয়ে জাতীয় শোক দিবস ১৫ আগস্টে গরিব-দুস্থ অসহায় ও দলীয় নেতাকর্মীদের জন্য বিশেষ এ আয়োজন করছেন।

জানা গেছে, নোয়াখালীর সদর, সুবর্ণচর, কবিরহাট ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের বিভিন্ন স্পটে ১৫ আগস্ট সকাল থেকে বিশেষ এ ভোজ চলবে। এছাড়া নোয়াখালী পৌরসভার ৯টি স্পটেও একই ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া হাসপাতাল, বিভিন্ন মন্দির গীর্জায় ও বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে এ দিনে।



এই প্রতিবেদন টি 1019 বার পঠিত.