অভিষেক ম্যাচেই মিরাজের অনন্য কীর্তি

চট্রগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ।
সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিন শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৫৮ রান করেছে ইংল্যান্ড। ৩৬ রান করে ক্রিজ ওকস ও ৫ রান করে আদিল রশিদ অপরাজিত আছেন।

৮২তম ওভারে প্রতিরোধ গড়া বেয়ারস্টোকে ফেরান মিরাজ। বিদায় নেয়ার আগে জনি বেয়ারস্টো (১২৬ বলে ৫২) রান করেন। এই উইকেটের মধ্য দিয়েই অভিষেকে বাংলাদেশের সপ্তম বোলার হিসেবে টেস্টে ৫ উইকেট পেলেন মিরাজ।

এর আগে মঈন আলিকে ফিরিয়ে ইংল্যান্ডের প্রতিরোধ ভাঙেন মিরাজ। ৬৮তম ওভারে এই অফ স্পিনারের বলে মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসবন্দি হন ১৭০ বলে ৬৮ রান করা মইন। অভিষিক্ত মিরাজের এটি চতুর্থ উইকেট।

দ্বিতীয় সেশনে জো রুট ও বেন স্টোকসের উইকেট হারিয়ে আরও ৯০ রান যোগ করে ইংল্যান্ড।

এরপর ৪১তম ওভারে সাকিব আল হাসানের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে ফিরেন বেন স্টোকস। বল তার ব্যাট-প্যাডের ফাঁক গলে স্টাম্পে আঘাত হানে। দলকে চাপে ফেলে ১০৬ রানে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিরেন স্টোকস।

দ্বিতীয় স্পেলে ফিরেই বিপজ্জনক জো রুটকে বিদায় করে নিজের তৃতীয় উইকেট শিকার করেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ৪৯ বলে ৫ চারে ৪০ রান করা রুটের ব্যাট ছুঁয়ে আসা ক্যাচটি ঝাঁপিয়ে তালুবন্দি করেন সাব্বির।

অভিষেকে দুর্দান্ত বোলিং করা মেহেদী হাসান মিরাজের দ্বিতীয় শিকার গ্যারি ব্যালান্স। অফ স্পিনারের রাউন্ড আর্ম ডেলিভারি স্কিড করে ভেতরে ঢুকে চুমু খায় তার প্যাডে (৭ বলে ১)। আম্পায়ার আউট না দিলেও রিভিউ নিয়ে সফল হন মুশফিকুর রহিম।

একাদশ ওভারে বোলিংয়ে এসেই আঘাত হানেন সাকিব আল হাসান। বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডারের বলে বোল্ড হন অ্যালেস্টার কুক (২৬ বলে ৪)। লেগ স্টাম্পের বাইরের বল সুইপ করতে চেয়ে পারেননি ইংল্যান্ডের অধিনায়ক। বল তার গ্লাভসে লেগে স্টাম্পে আঘাত হানে।

রেকর্ড গড়া অ্যালেস্টার কুকের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধন করেতে নেমেছিলেন অভিষিক্ত বেন ডাকেট। ব্যাটিংয়ের নেমেই মিরাজের ঘূর্ণির মুখোমুখি হয় ইংলিশরা। দ্বিতীয় ওভারেই এই অফ স্পিনারকে আক্রমণে আনেন অধিনায়ক। দশম ওভারে লেগ স্টাম্পে টার্ন করা বলে বেন ডাকেটকে বোল্ড করে নিজের প্রথম উইকেট শিকার করেন মিরাজ।

টস করতে নেমেই ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট খেলার রেকর্ড শুধু নিজের করে নেন অধিনায়ক কুক (১৩৪)। সাবেক অধিনায়ক অ্যালেক স্টুয়ার্টকে পেছনে ফেলেছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট অভিষেক হয় সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ ও কামরুল ইসলাম রাব্বির। এই ম্যাচ দিয়ে সাড়ে ১৪ মাস পর বড় দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটে ফিরল বাংলাদেশ।



এই প্রতিবেদন টি 683 বার পঠিত.