ব্লগার রাজীব হত্যার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ

২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি বাসায় ফেরার পথে পল্লবীর কালশীর পলাশনগরে দুর্বৃত্তের হামলায় নিহত হন রাজিব। ওই ঘটনায় রাজিবের বাবা ডা. নাজিম উদ্দীন পল্লবী থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির পরিদর্শক নিবারণ চন্দ্র বর্মণ ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে আটজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। অভিযোগপত্রে ৫৫ জনকে রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষী করা হয়। এর মধ্যে ৩৫ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন।

২ এপ্রিল রোববার রাজীব হত্যা মামলার আপিল ও ডেথ রেফারেন্সের রায়ে দুইজনের মৃত্যুদণ্ড, একজনের যাবজ্জীবন ও পাঁচজনের বিভিন্ন মেয়াদে সাজার রায় বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। ২৮ মে রোববার সুপ্রিমকোর্টের ওয়েবসাইটে ১৬৩ পৃষ্ঠার এ রায় প্রকাশ করা হয়। ব্লগার ও গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী রাজীব হায়দার শোভন হত্যা মামলার হাইকোর্টের দেওয়া পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হয়েছে।

রায়ে ঢাকার খিলক্ষেত চৌধুরীপাড়ার মো. ফয়সাল বিন নাঈম দ্বীপ (২২) ও ফেনী জেলার দাগনভূঁইয়া উপজেলার জয়লস্করের রেদোয়ানুল আজাদ রানার (৩০) মৃত্যুদণ্ড ও প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। ঢাকার কেরাণীগঞ্জ থানার ধলেশ্বর গ্রামের মাকসুদুল হাসান অনিককে (২৩) যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। তাকেও ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ বছর কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়।

এছাড়া এহসান রেজা রুম্মান, নাঈম ইরাদ ও নাফিজ ইমতিয়াজকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। একই সঙ্গে প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়।

 



এই প্রতিবেদন টি 394 বার পঠিত.